পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২০ August ২০২০

বান্দরবান সদর উপজেলার সুয়ালক-লামা সড়কের টংকাবতী ইউনিয়ন পরিষদ হতে ফুলতলী বাজার হয়ে চিনিপাড়া বাজার পর্যন্ত রাস্তা ও ব্রীজ নির্মাণ

১.

প্রকল্পের নাম

:

বান্দরবান সদর উপজেলার সুয়ালক-লামা সড়কের টংকাবতী ইউনিয়ন পরিষদ হতে ফুলতলী বাজার হয়ে চিনিপাড়া বাজার পর্যন্ত রাস্তা ও ব্রীজ নির্মাণ।

২.

প্রকল্প পরিচালকের নাম

:

মোঃ আবদুল আজিজ

৩.

বাস্তবায়নকারী সংস্থা

:

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড

৪.

প্রকল্পের বাস্তবায়নকাল

:

জুলাই, ২০১৭ খ্রিঃ হতে জুন, ২০২3 খ্রিঃ পর্যন্ত

৫.

প্রাক্কলিত ব্যয়

:

১০০০.০০ লক্ষ টাকা।

৬.

প্রকল্প এলাকা

:

বান্দরবান সদর উপজেলা।

৭.

প্রকল্প গ্রহণের প্রেক্ষাপট

:

বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্ব কোণে অবস্থিত বান্দরবান পার্বত্য জেলা। বান্দরবান পার্বত্য জেলার মোট আয়তন ৪,৭৪৯ বর্গ কিলোমিটার। লোকসংখ্যা ৪,০৪,০৭৯  জন। বান্দরবান সদর উপজেলায় চিম্বুক পাহাড়ের কোল ঘেষে টংকাবতী ইউনিয়ন অবস্থিত। দুর্গম এই ইউনিয়নে বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির বসবাস। প্রত্যন্ত এলাকায় বসবাসরত জনগোষ্ঠীর সাথে এখনো সরাসরি যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে উঠেনি। স্থানীয় জনগণ এখনো পাহাড়, ঝিড়ি, ছড়া এবং ছোট ছোট খাল দিয়ে পায়ে হাটার পথ ব্যবহার করে। এর ফলে পশ্চাৎপদ এই জনগোষ্ঠী এখন বিভিন্ন ক্ষেত্রে পিছিয়ে আছে। সরাসরি সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা স্থাপনের মাধ্যমে প্রকল্প এলাকার পশ্চাৎপদ জনগোষ্ঠীর উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয়েছে।

৮.

মোট সুবিধাভোগীর সংখ্যা

:

আনুমানিক ৪,০০০ জন।

৯.

উদ্দেশ্য

:

সাধারণ উদ্দেশ্য:

ক) প্রকল্প এলাকার পল্লী সড়ক উন্নয়নের মাধ্যমে কৃষি/অকৃষি অর্থনীতির সঞ্চালন।

খ) গ্রামীণ জনগণের জন্য গ্রাম, বাজার, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য  সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানে যাতায়ত সুবিধা বৃদ্ধির মাধ্যমে জীবন যাত্রার মানোন্নয়ন।

গ) স্বল্প ও র্দীঘ মেয়াদী কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে জনসাধারণের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের সুযোগ সৃষ্টি করা।

সুনিদির্ষ্ট উদ্দেশ্য:

ক) প্রকল্প এলাকায় উৎপাদিত কৃষিপণ্যের বাজারজাত সহজীকরণ।

খ) ইউনিয়ন, উপজেলা, জেলা সদরের সাথে প্রকল্প এলাকার সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপন।

গ্গ) উন্নয়ন কর্মকাণ্ড ত্বরান্বিত করার মাধ্যমে পশ্চাৎপদ জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন।

১০.

প্রকল্পের প্রধান উপাদানসমূহ

:

১। ৪৫৯০৭.৮০ ঘ:মি মাটির কাজ।

২। ৮.০০ কি:মি: এইচ.বি.বি করণ।

৩। ৬০.০০ মিটার ব্রীজ।

৪। ১০.০০ মিটার কালর্ভাট।

৫। ৯৮৫.৩২ মিটার ড্রেইন।

৬। ১০০.০০ মিটার আর.সি.সি রিটেইনিং ওয়াল।

৭। ১৪.৩০ মিটার ব্রীক ওয়াল।

১১.

প্রকল্পটির সাথে ভিশন-২০২১, এসডিজি, ৭ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা এবং সরকারের ইশতেহারের সম্পর্ক

:

১) ভিশন – ২০২১

ক) দারিদ্র্য দূরীকরণ

খ) অবকাঠামো উন্নয়ন

গ) ভৌগলিকভাবে পশ্চাৎপদ এলাকায় উন্নয়ন

১) এসডিজি:

ক) অভিজাত সহনশীল অবকাঠামো নির্মাণ

খ) সবধরনের দারিদ্রের অবসান

গ) সকল বয়সী সকল মানুষের জন্য সুস্বাস্থ্য ও কল্যাণ নিশ্চিতকরণ

১) ৭ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা:

ক) শিক্ষা, স্বাস্থ্য সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছানো

খ) আর্থিক মুক্তি নিশ্চিত করণ

গ) দূর্গম, প্রত্যন্ত এলাকার জনগণকে উন্নয়নের সাথে সম্পৃক্ত করণ

১) সরকারের ইশতেহার:

ক) উন্নত, দক্ষ ও নিরাপদ যোগাযোগ ব্যবস্থা নির্মাণ

খ) যোগাযোগ ব্যবস্থার আধুনিকায়ন

গ) প্রত্যন্ত এলাকায় যোগাযোগ ব্যবস্থার বিস্তৃতি ঘটানো

১২.

প্রকল্পের বিভিন্ন কার্যক্রমের ছবি

:

 

১৩.

ছোট আকারের ভিডিও ক্লিপ

:

 

১৪.

বাস্তবায়ন অগ্রগতি

:

ভৌত অগ্রগতি ২৯% এবং আর্থিক অগ্রগতি ২৮%


Share with :

Facebook Facebook